শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী ২০২১, ০৫:৪৬ অপরাহ্ন
Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২১, ০৯:৪০ PM
  • ৪১ বার পড়া হয়েছে

মঠবাড়িয়ায় আ. লীগের সমাবেশ-উপস্থিত ছিল না বিদ্রোহী গ্রুপ

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি : আওয়ামী লীগ সরকারের একযুগ পুর্তি ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় আনন্দ শোভাযাত্রা ও সমাবেশ করেছে উপজেলা আ‘লীগ। তবে এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন না উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পৌর মেয়র রফিউদ্দিন আহম্মেদ ফেরদৌস ও বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ ও তার ভাই আশরাফুর রহমান।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আগত আ’লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, শ্রমীক লীগ, তাতী লীগসহ নেতা কর্মীরা পৌর শহরে শোভাযাত্রা শেষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্ত্বরে সমাবেশে মিলিত হয়।

সমাবেশে পৌর আ‘লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলতাফ হোসেন আফজালের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, পিরোজপুর জেলা আ‘লীগ সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা এ.কে.এম সেলিম মিঞা, উপজেলা আ‘লীগ সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক সেলিম মাতুব্বর, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদিকুর রহমান, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট নাসরিন জাহান, সাংগঠনিক সম্পাদক লোকমান হোসেন খান, ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল হক রাহাত, রিয়াজুল আলম ঝনো, রফিকুল ইসলাম রিপন, আ‘লীগ প্রচার সম্পাদক ফজলুল হক মনি, ইউপি চেয়ারম্যান, হারুন আর রশিদ. নাসির উদ্দিন হাওলাদার, শ্রমিকলীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ উদ্দিন, সাবেক যুবলীগ সভাপতি শাকিল আহম্মেদ নওরোজ, যুবলীগ সভাপতি আবু হানিফ, সাধারণ সম্পাদক নজরুল সোহেল প্রমুখ। সমাবেশে বক্তারা সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নের কথা তুলে ধরেন।

আলতাফ হোসেন আফজালসহ সব বক্তা তাদের বক্তব্যে জোড়ালোভাবে বলেন, বিদ্রোহী আওয়ামী লীগের মঠবাড়িয়ায় স্থান হবে না। তারা রফিউদ্দিন আহম্মেদ ফেরদৌস ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী আশরাফুর রহমান ও তার ভাই গত উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হোসাইন মোশারেফ সাকুর বিরোধী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে বিজয়ী উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ গংদের বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখেন। কারও নাম উল্লেখ না করে বক্তারা তাদের সবাইকে মূল দলে ফিরে আসার আহবান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে আলতাফ হোসেন আফজাল বলেন, আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে যেসব বর্তমান চেয়ারম্যান আমাদের পক্ষে আছে তারা সবাই মনোনয়ন পাবে। তিনি ধানীসাফা, দাউদখালী, টিকিকাটা, হলতা-গুলিশাখালী ও বড় মাছুয়ার বর্তমান চেয়ারম্যানদের নাম উল্লেখ করে বলেন, এরা সবাই মনোনয়ন পাবে। বাকী ইউনিয়নগুলোতে আমরা পরে সিদ্ধান্ত নেব।

উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতিসহ অন্যদের দিকে ইঙ্গিত করে আলতাফ হোসেন আফজাল বলেন, আপনারা সেলিম মাতুব্বরকে কেটে দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু আপনারা গঠনতন্ত্র পড়েননি। তিনি গঠনতন্ত্র পড়ার আহবান জানিয়ে বলেন, আগে গঠনতন্ত্রের ৪৭ধারা পড়ে আসেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি একেএম সেলিম মিয়া বলেন, আজিজুল হক সেলিম মাতুব্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিল, আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

সমাবেশে কয়েকহাজার আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীকে মিছিলসহকারে যোগদান করতে দেখা যায়।

 

উল্লেখ্য, গত উপজেলা নির্বাচনে উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি রফিউদ্দিন আহম্মেদ ফেরদৌস শেখ হাসিনা মনোনীত উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হোসাইন মোশারেফ সাকুর পক্ষে ছিলেন। ওই নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আশরাফুর রহমানের ভাই রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ এবং বিজয়ী হন। তারও আগে থেকে আশরাফুর রহমান গ্রুপ ও রফিউদ্দিন ফেরদৌস গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন দ্বন্দ্ব ছিল। কিন্তু সম্প্রতি উপজেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিল ঘিরে আশরাফুর রহমানের সঙ্গে হাত মেলান রফিউদ্দিন ফেরদৌস। এতে ক্ষিপ্ত হন উপজেলা সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক সেলিম মাতুব্বর। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলতাফ হোসেন আফজালকে নিয়ে একটি প্যানেল তৈরী করেন। অপরদিকে রফিউদ্দিন ফেরদৌস আশরাফুর রহমানের সঙ্গে জোট বেধে একটি প্যানেল তেরী করেন। কিন্তু ৩১ডিসেম্বর কাউন্সিল হওয়ার কথা থাকলেও আগের কেন্দ্রীয় নির্দেশে কাউন্সিল স্থগিত করা হয়। এ নিয়ে গত প্রায় একমাস যাবত দুটি গ্রুপের মধ্যে ঠান্ডা লড়াই চলছে। আজকের সমাবেশে সেটা প্রকাশ্যে চলে আসলো বলে স্থানীয়দের মত।

Please Share This Post in Your Social Media

এই জাতীয় আরো নিউজ

© All rights reserved © 2020 bd-bangla24.com

Theme Customized By Subrata Sutradhar