মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ১০:২৭ অপরাহ্ন
Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২ মে, ২০২১, ১০:০১ AM
  • ১৬ বার পড়া হয়েছে

সাইবার হামলা মোকাবেলায় জোট গঠন

সাইবার হামলা মোকাবেলায় জোট গঠন করলো মাইক্রোসফট, অ্যামাজন, এফবিআই ও যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল ক্রাইম এজেন্সি। র‌্যানসমওয়্যার টাস্ক ফোর্স (আরটিএফ) নামের সদ্য গঠিত এই জোট ইতোমধ্যে সরকারকে ৫০টি সুপারিশ করেছে।৫০ প্রস্তাবের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- র‌্যানসমওয়্যারকে জাতীয় নিরাপত্তা হুমকি হিসেবে বিবেচনা করতে হবে, ‘রেসপন্স ও রিকভারি ফান্ড’ গঠন করতে হবে, ক্রিপ্টোকারেন্সি সংক্রান্ত নিয়ম-নীতি বাড়াতে হবে। আরটিএফ অধিকাংশ সাইবার হামলার সন্দেহভাজন হিসেবে রাশিয়া, উত্তর কোরিয়া ও ইরানের নাম উল্লেখ করেছে।

এই জোট গড়ার মূল উদ্দেশ্য বৈশ্বিকভাবে র‌্যানসমওয়্যার (ম্যালওয়্যার) প্রতিরোধের লক্ষ্যে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সঙ্গে জরুরীভিত্তিকে সমন্বয় করে পদক্ষেপ গ্রহণ করা।করোনাকালে র‌্যানসমওয়্যার গ্যাংরা সাইবার হামলায় সবচেয়ে বেশি লক্ষ্যবস্তু বানিয়েছে হাসপাতাল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে। ম্যালওয়্যার সফটওয়্যার ব্যবহার করে তারা প্রতিষ্ঠানের কম্পিউটারগুলোতে হানা দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য-উপাত্ত হাতিয়ে নিচ্ছে। এ অবস্থার লাগাম টানতে আরটিএফ মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছে একটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছে।গত কয়েক বছর ধরে র‌্যানসমওয়্যার জাতীয় নিরাপত্তা ও জনস্বাস্থ্যের জন্য ভয়ংকর ঝুঁকি হিসেবে দেখা দিয়েছে বলে এই প্রতিবেদনে তারা সতর্ক করেছে।

কোনো কোনো ক্ষেত্রে এ ধরনের সাইবার হামলার ক্ষয়ক্ষতির প্রভাব আর্থিক ক্ষতির চাইতেও অনেক বেশি।আরটিএফের কো-চেয়ারম্যান জেন ইলিস জানান, সাইবার হামলার মাধ্যমে জন সাধারণ প্রতিদিনই কোনো না কোনোভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এর ফলে অর্থনীতি ও জন সেবামূলক কাজে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। শুধু তা-ই না, পেইড র‌্যানসমওয়্যারের মাধ্যমে সংগৃহীত অর্থকে কাজে লাগিয়ে সাইবার অপরাধীরা নানামুখী অপরাধ এমনকি মানবপাচারের সঙ্গেও সংশ্লিষ্ট হচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে।যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল সাইবার সিকিউরিটি সেন্টার জানিয়েছে, তারা ২০২০ সালে আগের বছরের (২০১৯) চেয়ে তিন গুণ বেশি বার র‌্যানসমওয়্যারের ঘটনাকে প্রতিহত করেছে।লন্ডন বরঘ অব হ্যাকনির তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের পরিচালক রব মিলার এরকম এক সাইবার হামলার ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে বলেন, গত বছরের অক্টোবরের এক সকালে জরুরী কল পেলাম। আমাদের আইটি সিস্টেমে এক বড় ধরনের সমস্যার কথা শুনে প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে জরুরী ভিত্তিতে আমাদের সব সিস্টেমের ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিই। এটি বড় ধরনের সাইবার আক্রমণ ছিল। আমরা তিন লাখ লোককে এই সিস্টেমের মাধ্যমে সেবা দিই। এ ধরনের প্রতিষ্ঠানে হামলা হলে বড় ধরনের ক্ষতির আশঙ্কা থাকে।

Please Share This Post in Your Social Media

এই জাতীয় আরো নিউজ

© All rights reserved © 2020 bd-bangla24.com

Theme Customized By Subrata Sutradhar