মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ১১:২১ অপরাহ্ন
Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৩ জুন, ২০২১, ০৭:২৪ PM
  • ১০০ বার পড়া হয়েছে
এবি পার্টির বাজেটোত্তোর অনলাইন ব্রিফিং-এ ড. রেজা কিবরিয়া:

বাজেটে জনগণকে কোভিডের মহাসংকট থেকে রক্ষার দিক নির্দেশনা নেই

এবি পার্টি আয়োজিত ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটোত্তোর অনলাইন ব্রিফিং-এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও রাজনীতিবিদ ড. রেজা কিবরিয়া উপরোক্ত কথা বলেন। তিনি আরও বলেন সরকারের দেয়া সকল পরিসংখ্যান, করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা, সকলকে টিকা দেয়ার অঙ্গীকার এগুলো সবকিছুই আঠারো সালের সংসদ নির্বাচনের মতোই ভূয়া মনেহচ্ছে।

এবি পার্টির আহ্বায়ক এএফএম সোলায়মান চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সদস্য সচিব ব্যারিস্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদের সঞ্চালনায় বিকেল সাড়ে চারটায় অনলাইন ব্রিফিং শুরু হয়।

অনুষ্ঠানে বাজেটের উপর আরো বক্তব্য রাখেন এবি পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক এ্যাড. তাজুল ইসলাম, সহকারী সদস্য সচিব ব্যারিষ্টার সানি আব্দুল হক, আমিনুল ইসলাম এফসিএ ও কেন্দ্রীয় নেত্রী ব্যারিস্টার নাসরীন সুলতানা মিলি।

ড. রেজা কিবরিয়া আরও বলেন, এটি দুর্নীতির ধারাবাহিতা রক্ষার বাজেট। স্বাস্থ্যখাতে সরকার গত দুই বছরে কিছুই করতে পারেনি। একটি কোম্পানি, একটি দেশের কাছে জিম্মি থাকায় মাত্র দুই শতাংশ মানুষ টিকা পেয়েছে। বিদেশি ঋণ জনগনের ওপর করের বোঝা চাপিয়ে পরিশোধ করা হবে বলেও আশংকা প্রকাশ করেন তিনি। তিনি বলেন, যে প্রবাসীরা দেশের অর্থনীতি বাঁচিয়ে রেখেছেন তাদের জন্য কোন পদক্ষেপ নেই। তিনি বলেন, রপ্তানি খাতে ২ শতাংশ ভর্তুকির সুবিধা পাবে অর্থ পাচারকারীরা। তিনি অভিযোগ করেন, বড় প্রকল্পে লুটপাটের সুযোগ বেশি তাই সরকার গরিবদের প্রনোদনায় আগ্রহ দেখায় না। বাজেটে কোন ভিশন নেই এবং এ বিপদের সময় অর্থমন্ত্রী কোন ক্যারিশমা দেখাতে পারেননি বলেও অভিযোগ করেন ড. রেজা কিবরিয়া।

সভাপতির বক্তব্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড সহ গুরুত্বপূর্ণ আর্থিক প্রতিষ্ঠান সমূহে দায়িত্বপালনকারী সাবেক সচিব এএফএম সোলায়মান চৌধুরী বলেন,
বাজেট বাস্তবায়নে অর্থ বছরের সময় পরিবর্তন এখন অপরিহার্য। তিনি আক্ষেপ করে বলেন, এবারও বাজেট বাস্তবায়নের কোন সুষ্ঠু রোডম্যাপ পেলাম না। ডিজিটাল বাংলাদেশের কথা বলা হলেও রাজস্ব আহরনে অটোমেশন ও জনবলের দক্ষতা কাজে লাগানোর কোন পদক্ষেপ নেই, ফলে রাজস্ব খাতে প্রাপ্তির ফাঁকিবাজি রয়ে গেলো। উন্নয়ন খাতে প্রকল্প পরিকল্পনা দেখা যায় না, ফলে উন্নয়ন খাতের অর্থ যথাযথ ভাবে খরচ করা যায় না এবং জনগণ তাঁর কাঙ্ক্ষিত উন্নয়নের সুফল থেকে বঞ্চিত হবে।

বাজেট বিশ্লেষণে এ্যাড. তাজুল ইসলাম প্রশ্ন তুলে বলেন, যে লক্ষ্যে রাষ্ট্র গঠিত হয়েছিলো আজকের ঘোষিত বাজেট কি আমাদের সেই কাঙ্খিত রাষ্ট্র গঠনে ভূমিকা রাখবে? আমাদের দেশের সাধারণ মানুষের জন্য এই বাজেটে কি আছে তা বিবেচনা করতে হবে। যে বাজেট বাস্তবায়ন যোগ্য না তা ঘোষণায় রাষ্ট্রের কোন কল্যান নেই। এবি পার্টির পক্ষ থেকে আমরা একটি কল্যানময় রাষ্ট্র গঠনের জন্য বাস্তব ভিত্তিক বাজেট চাই।

ব্যারিস্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদ আমলাদের অফিস ও বাসা সৌন্দর্যবর্ধনের মত বিলাসী বরাদ্দ কমিয়ে দেশের ৬ কোটি দরিদ্র মানুষকে ১৫ হাজার টাকা করে নগদ সহায়তা দেয়ার দাবি জানান।

ব্যারিষ্টার সানি আব্দুল হক তাঁর বক্তব্যে বলেন, আমরা হাজার হাজার লক্ষ কোটি টাকার বাজেট প্রতি বছর পাচ্ছি যা বাস্তবায়ন যোগ্য না তাই আমরা গণমুখি বাস্তব ভিত্তিক বাজেট চাই।

ব্যারিষ্টার নাসরিন সুলতানা মিলি বলেন, কর্পোরেট বড় ব্যবসায়ীদের জন্য প্রনোদনা প্যাকেজ, ট্যাক্স ভ্যাকেশান থাকলেও ক্ষুদ্র কুটিরশিল্প ব্যাবসায়ীদের জন্য কোন কিছুই এই বাজেটে নেই যা খুবই দুঃখজনক।

ব্রিফিং অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন দলের যুগ্ম আহ্বায়ক প্রফেসর ডা. মেজর (অব.) আব্দুল ওহাব মিনার, সদস্য সচিব মজিবুর রহমান মন্জু, যুগ্ম সদস্য সচিব ব্যারিস্টার যুবায়ের আহমেদ ভুঁইয়া, সহকারী সদস্য সচিব এ্যাড. আব্দুল্লাহ আল মামুন রানা, এবিএম খালিদ হাসান, আনোয়ার সাদাত টুটুল, শাহ আব্দুর রহমান, আলতাফ হোসেন, মহানগর দক্ষিণের আহবায়ক এএফ ওবায়দুল্লাহ মামুন, দক্ষিণের সদস্য সচিব আব্দুল্লাহ আল হাসান সাকিব, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মিনহাজুল আবেদীন শরীফ, আবদুল হালিম নান্নু, যুবনেতা আনোয়ার ফারুক, এডভোকেট আলী নাসের খান, মাসুদ জমাদ্দার রানা, ঢাকা মহানগর যুগ্ম সদস্য সচিব আফ্রিদ হাসান তমাল, মহানগর উত্তরের সংগঠক সেলিম খান, সাইফুল মির্জা, রেখা আক্তার, ফারহানা মিনা খাতুন পাখি, লুনা আক্তার সহ কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতৃবৃন্দ।

Please Share This Post in Your Social Media

এই জাতীয় আরো নিউজ

© All rights reserved © 2020 bd-bangla24.com

Theme Customized By Subrata Sutradhar